ব্রেকিং নিউজঃ
Home / শিক্ষা / কচুয়ায় এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ৫ হাজার ৮শ ৩২ জন
প্রতীকী ছবি

কচুয়ায় এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করবে ৫ হাজার ৮শ ৩২ জন

মো. মেহেদী হাসান : সারাদেশের ন্যায় চাঁদপুরের কচুয়ায় কুমিল্লা শিক্ষাবোর্ড এর অধীনে এসএসসি পরীক্ষায় ৪ হাজার ২শ ৮ জন ও বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের অধীনে দাখিল পরীক্ষায় ১ হাজার ৪শ ৫৯ জন পরীক্ষার্থী ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে ১৬৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে। সোমবার অনুষ্ঠিতব্য এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় কচুয়ার ১১টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

কচুয়া উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ১১টি কেন্দ্রের মধ্যে এসএসসির ৭টি কেন্দ্রে ৪ হাজার ২শ ৮জন, ভোকেশনাল ১টি কেন্দ্রে ১৬৫ জন পরীক্ষার্থী ও দাখিল ৩টি কেন্দ্রে ১ হাজার ৪শ ৫৯ জন শিক্ষার্থীসহ ৫ হাজার ৮শ ৩২ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করবে।

কচুয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় ৮৫৯ জন, সাচার বহুমূখী উচ্চ বিদ্যালয় ৭০১ জন, রহিমানগর বিএবি উচ্চ বিদ্যালয় ৫৯৪ জন, পালাখাল উচ্চ বিদ্যালয় ৬৫৯ জন, আশেক আলী খান উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ ৬৭৫ জন, আশরাফপুর আহসানিয়া উচ্চ বিদ্যালয় ৩৩৩ জন ও মাঝিগাছা এমএম উচ্চ বিদ্যালয় ৩৮৭ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।

নিশ্চিন্তপুর ডি.এস কামিল মাদরাসা ৬৫৩ জন, বিতারা আলীম মাদরাসা ৩৬১ জন ও মনোহরপুর ফাজিল ডিগ্রি মাদরাসা ৪৪৫ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করবে।

পরীক্ষায় শান্তিপূর্ণ অবাধ ও নকলমুক্ত পরিবেশে গ্রহনের লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ হতে ব্যাপক প্রস্তুতি হাতে নেয়া হয়েছে।

কোনো প্রকার অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসন কঠোর নজরদারিতে রয়েছে। অপরদিকে চলমান এসএসসি ও দাখিল পরীক্ষায় শান্তিপূর্ণ ভাবে গ্রহনের লক্ষ্যে সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার দীপায়ণ দাস শুভ।

প্রসংগত: শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা বোর্ড মিলিয়ে এবার মোট পরীক্ষার্থী ২০ লাখ ৪৭ হাজার ৭৭৯ জন। গত বছরের তুলনায় এ বছর মোট পরীক্ষার্থী ৮৭ হাজার ৫৫৪ জন কমেছে।

আগের মতো এ বছরও পরীক্ষা শুরু হওয়ার কমপক্ষে ৩০ মিনিট আগে পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রে ঢুকতে হবে। তবে অনিবার্য কারণে কোনো পরীক্ষার্থী ঠিকমতো প্রবেশ করতে না পারলে তার কারণ, নাম, রোলসহ উল্লেখ করে কেন্দ্রে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে। সেই তথ্য পরীক্ষার দিনই সংশ্লিষ্ট শিক্ষাবোর্ডকে জানাতে হবে। পরীক্ষাকেন্দ্রে কেউ মোবাইল ফোন নিতে পারবে না। শুধু কেন্দ্রসচিব সাধারণ মানের একটি মোবাইল ফোন ব্যবহার করতে পারবেন। পরীক্ষা শুরুর ২৫ মিনিট আগে খুদে বার্তা পাঠিয়ে কোন সেটের প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা নেওয়া হবে, সেটি কেন্দ্রসচিবকে জানানো হবে। এই পরীক্ষার কারণে গত ২৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে সরকার।

Facebook Comments

Check Also

মতলব ভারকপ কিন্ডার গার্টেনের ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

মনিরুল ইসলাম মনির : মতলব উত্তর উপজেলার পাঁচানী চৌরাস্তা বাজার সংলগ্ন ভারকপ কিন্ডার গার্টেনের বার্ষিক …

vv