ব্রেকিং নিউজঃ
Home / প্রিয় অনুসন্ধান / কচুয়ার ১ হাজার টাকাকে কেন্দ্র করে মসজিদের মুয়াজ্জিনের উপর হামলা
আহত মুয়াজ্জিন আযম।

কচুয়ার ১ হাজার টাকাকে কেন্দ্র করে মসজিদের মুয়াজ্জিনের উপর হামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি : কচুয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ড কড়ইয়া মুন্সী বাড়ি জামে মসজিদের মুয়াজ্জিন ও কচুয়া শহীদ স্মৃতি সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ধর্মীয় শিক্ষক আযম হোসেনের (৪০) উপর ১ হাজার টাকাকে কেন্দ্র করে হামলার অভিযোগ উঠেছে। গত ৫ সেপ্টেম্বর রবিবার সকালে মসজিদ প্রাঙ্গনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে।

জানা যায়, গত ৫ সেপ্টেম্বর রবিবার সকালে মুয়াজ্জিন আযম মসজিদের ভিতরে সকালের মক্তব পড়ানোকালীন মুন্সী বাড়ির মনির হোসেন মুন্সীর ছেলে রাজু মুয়াজ্জিনের রুমের দরজা ভেঙ্গে ১ হাজার টাকা নিয়ে যায়। কিছুক্ষণ পর রাজুর সাথে মুয়াজ্জিন আযমের ১ হাজার টাকা নিয়ে বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হলে রাজু, বাকি বিল্লাহ মুয়াজ্জিনকে কিল ঘুশি মারা শুরু করে। মারার এক পর্যায়ে পাশের ঘর থেকে দৌড়ে মনিরুল হক মুন্সী ও জাবেদ এসে মুয়াজ্জিনকে আবারো মারা শুরু করে। মসজিদে মুয়াজ্জিনের চিৎকার শুনে আশেপাশে লোকজন জড়ো হয় এবং মুয়াজ্জিন আযমকে আহত অবস্থায় কচুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়।

অনুসন্ধানে জানা যায়, মনিরুল হক মুন্সীর পরিবার অত্যন্ত দুষ্টু প্রকৃতির। মনিরুল হক মুন্সী বাড়ির মসজিদে দীর্ঘদিন ইমামতির দায়িত্ব পালনকালে কোন রকম হিসাব নিকাশ ছাড়া মসজিদকে পৈত্রিক সম্পত্তিরূপে ব্যবহার করতেন। বিগত কয়েক বছর আগে হিসাব নিকাশে গড়মিল ও উচ্চারণে অশুদ্ধতার জন্য মসজিদ থেকে তিনি চাকুরীচ্যুত হন। এরপর থেকেই শুরু চক্রান্ত, ষড়যন্ত্র। ঊচ্চারনে ভুল ধরায় মাওলানা কাজী মফিজুল ইসলাম ও নামাজরত কাজী শাহিদের ওপর হামলা করা হয়েছে। বিগত ৬ মাস আগে বাকী বিল্লাহ মসজিদের বর্তমান ইমাম হাফেজ মাওলানা শাহিন আলমকে অপদস্ত করতে অপরিচিত মোবাইল নম্বরে মহিলা দিয়ে হয়রানী করে।

এ ব্যাপারে কচুয়া থানায়– জিডি নং -১২৬৩ মূলে পুলিশ বাকি বিল্লাকে শনাক্ত করে। পরে প্রভাবশালীমহলের হস্তক্ষেপে ২০হাজার টাকা জরিমানা ও ১০হাজার টাকা মুচলেখা করে পাড় পেয়ে যায়। এদিকে মুন্সী বাড়িতে ১৫টি পরিবারের মধ্যে কারও সাথে মনিরুল হকের পরিবারে কোন সম্পর্ক নেই। বিগত কয়ক বছর আগে মাহাবুব আলম মুন্সীর জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে ৩টি পরিবারের ১৪জনকে আহত করে হাসপাতালে পাঠায় তারা।

উক্ত ঘটনায় গ্রাম পলিসিকে কাজে লাগিয়ে ৩০হাজার টাকা জরিমানা দেয়। মসজিদের নির্মাণ কাজ চলাকালীন মসজিদ কেশিয়ার আকাব্বর বেপারী ও মোস্তফা বেপারীর ওপর হামলা করে মনিরুল হকের ছেলেরা। আশ্রাফ কাজীর পুকুরে অংশ পাবে বলে ২০/৩০বছর পুকুরের মাঝে বেড়া দিয়ে রেখেছে মনিরুল হক। গত বছর ছাড়া বাড়ীর অংশ নিয়ে মনিরুল হক ও সদর উদ্দিন গংদের মাঝে মারামারি হয়। এ ঘটনায় আদালতে মামলা হয়। নেশাগ্রস্ত রাজু গত কয়েক বছর আগে কারিম বেপারীকে হত্যার উদ্দেশ্যে রাতে দক্ষিণ বিলে নিয়ে পেটে ছুরিমারে। পরে লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

এ দিকে নাম না প্রকাশ করার শর্তে মসজিদের সাবেক সভাপতি বলেন, মনিরুল হকের পরিবার প্রতিটি ইমাম মুয়াজ্জিনদের বিভিন্ন অপবাদ দিয়ে হটানোর চক্রান্ত করেছে। উল্লেখ্য, বোনদের ক্রয়কৃত জায়গাসহ ৫ভাই ২বোনের জায়গা জমি একাই ভোগ দখল করে রেখেছে মনিরুল গং। বাকী বিল্লাহ গত কয়েক মাস আগে তাদের ডেঙ্গায় একটি শিশু মেয়েকে যৌন হয়রানী করার চেষ্টা করে বলে এলাকাবাসী মনিরুল হকের পরিবারের ইতিপূর্বে কৃতকর্মের শ্বেতপত্র ও গণস্বক্ষরের লিখিত কপি প্রতিবেদকের কাছে হস্তান্তর করেছেন।

এ দিকে মুয়াজ্জিনের ওপর হামলার প্রতিবাদে পুষে উঠছে এলাকাবাসী। যে কোন মুহূর্তে রক্তক্ষয়ি সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে।

Facebook Comments

Check Also

হাজীগঞ্জে চুরি হওয়া দুই মোটরসাইকেল সহ চোর গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার : কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম থেকে হোন্ডা চোর মনির হোসেনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়েছে হাজীগঞ্জ …

Shares
vv